1. admin@newsnarayanganjbd.com : newsnarayanganj :
রবিবার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন

ফতুল্লায় ২ যুবককে নির্যাতন : অবশেষে মামলা দায়ের : অধরা আলাউদ্দিন মেম্বার : গ্রেফতার ২

নিউজ নারায়ণগঞ্জ বিডি ডট নেট
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৭৭৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

ফতুল্লার কুতুবপুরে দুই যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধরের ঘটনায় অবশেষে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় আওয়ামীলীগ নেতা ও ইউপি মেম্বার আলাউদ্দিন হাওলারদারকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) বিকেলে নির্যাতনের শিকার নাঈমের মা নাজমা বেগম বাদী হয়ে এই মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলায় আরও চারজনের নামোল্লেখসহ কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। আলাউদ্দিন হাওলাদার কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুই নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি। তিনি কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য। মামলা দায়েরের পর দিবাগত শুক্রবার গভীর রাতে পাগলা এলাকা থেকে রবিন ও ইনুস নামে দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসেন বলেন, ওই ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
উল্লেখ্য, ফতুল্লার পাগলায় দুই যুবককে ছাগল চোর আখ্যা দিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় পেটানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। পিটুনিতে আহত নাঈম (২৫) কুতুবপুর ইউনিয়নের মুসলিমপাড়া এলাকার আব্দুর রব মাস্টারের ছেলে এবং অপরজন একই এলাকার রাতুল (৩০)।


বছরের প্রথম দিন ১ জানুয়ারি ফতুল্লার কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য ও কুতুবপুর ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আলাউদ্দিন হাওলাদারের নিজ বাড়ির কার্যালয়ে এঘটনা ঘটে। নির্যাতনের পর গুরুতর আহত অবস্থায় যুবকদের পুলিশের হাতে তুলে আলাউদ্দিন হাওলাদার। পরে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের সহায়তায় আহত যুবকদের ছাগল চুরির মামলা দিয়ে আদালতে প্রেরণ করে।
ওই সময় ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করেছিলেন, ২০১৯ সালের ১২ ডিসেম্বর শাহী মহল্লা এলাকার শফিকুল ইসলামের দুটি বিদেশি জাতের ছাগল চুরি হয়। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে দুজন চোরকে ধরে তাদের স্বীকারুক্তিতে মুন্সিগঞ্জ থেকে ছাগল দুটি উদ্ধার করা হয়।
আলাউদ্দিন হাওলাদার বলেন, নাঈম ও রাতুলকে মারধরের সময় ছাগলের মালিক শরীফ মিয়া নিজেই তার মোবাইলে ভিডিও ধারণ করেন। এদিকে ভিডিওতে দেখা গেছে, দুই যুবককে পেটানো হচ্ছে। আর সেই পেটানোর নির্দেশ দিচ্ছেন আলাউদ্দিন হাওলাদার।
নাঈমের মা নাজমা বেগম বলেন, আমার ছেলে প্রিন্টিং কারখানায় কাজ করে। ৩১ ডিসেম্বর রাতুলের সঙ্গে তাকেও মারতে মারতে নিয়ে গেছে। পরে আবার আলাউদ্দিন হাওলাদার তার অফিসে নিয়ে গিয়া ইচ্ছামত পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে।
একটা পাগলা কুকুরকেও মানুষ এভাবে পিটায় না। আমার ছেলে অন্যায় করলে আমাদের জানাতে পারতো, পুলিশে দিতো। আমরা ওই বর্বরদের নির্যাতনের বিচার চাই।
এ বিষয়ে ফতুল্লা থানার এস আই মোদাচ্ছের জানায় ছাগল চুরির অভিযোগ পেয়ে আমি তদন্তে গিয়ে ছাগল উদ্বারসহ চোরদের গ্রেফতার করতে পারিনি। তবে একটি ভিডি ও ফুটেজে চুরির ঘটনাটি দেখা গেছে। পরবর্তীতে বাদী একদিন ফোন করে আমাকে জানায় চোরেরা জালকুড়ী এলাকায় অবস্থান করছে। ঐ এলাকায় আমার ডিউটি না থাকায় আমি তখন এস আই সালেককে বিষয়টি অবগত করি। সালেক তখন গিয়ে চুরির সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে পরবর্তীতে তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক মুন্সিগঞ্জ থেকে চুরি যাওয়া ছাগল উদ্বার করা হয়। আটককৃত চোরদের বিরুদ্বে মামলা হয় এবং তাদেরকে আাদালতে চালান দেয়া হয়।

সংবাদটি আপনার ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ

আমাদের দৈনিক পত্রিকা পড়ুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত নিউজ নারায়ণগঞ্জ বিডি ডট নেট
Customized By NewsSmart