1. admin@newsnarayanganjbd.com : newsnarayanganj :
মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০৪:১৩ অপরাহ্ন

আজ ভাষা সৈনিক খান সাহেব এম ওসমান আলীর মৃত্যুবার্ষিকী

নিউজ নারায়ণগঞ্জ বিডি ডট কম
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ, ২০২০
  • ১৩৪ জন সংবাদটি পড়েছেন
আজ ভাষা সৈনিক খান সাহেব এম ওসমান আলীর মৃত্যুবার্ষিকী

আজ ভাষা সৈনিক খান সাহেব এম ওসমান আলীর ৪৯তম মৃত্যু বার্ষিকী। অবিভক্ত বাংলার এম, এল, এ ও বিশ^ কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রশংসিত “সবুজ বাংলা” পত্রিকার সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, ৫২ ভাষা আন্দোলনের নির্যাতিত ভাষা সৈনিক ছিলেন তিনি। আজ তার নিজ বাসভন বাইতুল আমান চাষাঢ়ায় এবং তার প্রতিষ্ঠিত জামালকান্দি ওসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, দাউদকান্দি, কুমিল্লায় বিশেষ আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠান সূচীতে থাকছে কোরআনখানী, মিলাদ মাহফিল, কাঙ্গালী ভোজ, বস্ত্র বিতরন ও আলোচনা সভা। বাদ যোহর উক্ত মিলাদ মাহফিলে উপস্থিত থেকে বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা জন্য সকলের প্রতি পরিবারের পক্ষ থেকে বিশেষ অনুরোধ জানানো হয়েছে। এছাড়াও মরহুমের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ছিন্নমুল মানুষের মধ্যে বস্ত্র বিতরন ও জয়পুর হাট(বগুড়া) সাইয়েদীনা মোহাম্মাদুর রসূলুল্লাহ(স:) দীনে মারকাদ এতিমখান এবং মিরপুর নুরে মদীনা আজমেরী দরবার শরীফ এতিমখানায় কোরআন খতম ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

খান সাহেব ওসমান আলীর পরিচিতি

‘প্রাচ্যের ডান্ডি’ খ্যাত নারায়ণগঞ্জ ব্রিটিশ আমল থেকেই ব্যবসা-বাণিজ্যে, বিশেষত পাট, সুতা, হোসিয়ারি, চাল-ডাল-চিনি-লবণসহ বিভিন্ন আড়তদারি ব্যবসায়ে প্রসিদ্ধ ছিল। এই নারায়ণগঞ্জেরই কৃতী সন্তান ছিলেন ওসমান আলী। তিনি একাধারে ছিলেন একজন রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী এবং একজন শিক্ষানুরাগী এমএলএ। ছাত্রজীবনে ১৯২০ সালে কলকাতায় বেকার হোস্টেলে থাকতেন। সে সময়ে তরুণ ব্যারিস্টার শহীদ সোহরাওয়ার্দী সাহেবের ইংরেজিতে তুখোড় বক্তৃতা শুনে ওসমান আলীসহ অনেকেই মুগ্ধ হন। পরবর্তীতে দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন ও সোহরাওয়ার্দীর নেতৃত্বে ব্রিটিশবিরোধী অসহযোগ আন্দোলনে যোগ দেন এবং ডিগ্রি পরীক্ষা বর্জন করেন। শুধু তাই নয়, ডিগ্রি পাস করে তৎকালীন মুসলমান কোটা অনুযায়ী লোভনীয় সরকারি চাকরি, বিশেষত শেরে বাংলার সহযোগিতায় সাব রেজিস্ট্রি অফিসের চাকরির সুযোগ গ্রহণ না করে বরং তিনি সাংবাদিকতা এবং ব্যবসায় আত্মনিয়োগ করেন। তিনি শিল্প এবং সাহিত্যে অনুরাগী ছিলেন। যার ফলে ৩০-এর দশকে সাংবাদিক হিসেবে নারায়ণগঞ্জ থেকে ‘সবুজ বাংলা’ নামে মাসিক পত্রিকা সম্পাদনা ও প্রকাশ করেন। ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ কিছুদিন এই পত্রিকা সম্পাদনা করেছিলেন। সেই সময়ে ওসমান আলী রচিত আট ইয়ারের বৈঠক নামক ধারাবাহিক গল্প প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন সাহিত্যিক গল্প প্রকাশ করতে থাকেন। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ, অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল, সাহিত্যিক আবুল মনসুর আহমেদ, কবি বেনজীর আহমেদ, পল্লীকবি জসিম উদ্দীন, বন্দে আলী মিয়া, সাহিত্যিক মোহিতলাল মজুমদার, আব্দুল ওয়াদুদ প্রমুখের রচনায় সমৃদ্ধ ছিল সবুজ বাংলা। পাট ব্যবসার কেন্দ্র এইরূপ সমৃদ্ধ ‘সবুজ বাংলা’র প্রকাশক ওসমান আলীকে বিশ্বকবি লিখেছিলেন: ‘ভেবেছিলুম নারায়ণগঞ্জ শহরটি একটি ব্যবসা কেন্দ্র। কিন্তু এখান থেকেও সুন্দর সাহিত্য প্রকাশনা দেখে মুগ্ধ হলুম। সবুজ দেশের অঙ্গে অঙ্গে সবুজ বাংলা মুখরিত হয়ে উঠুক, এই কামনা করি’। আশীর্বাদক শ্রী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। সবুজ বাংলার কার্যালয় ছিল নারায়ণগঞ্জের চাষাড়াস্থ তার নিজস্ব বাসভবন ‘বাইতুল আমান’। কবি-সাহিত্যিকদের নিয়মিত প্রকাশনা ছাড়াও তখন প্রায়ই কবি-সাহিত্যিক এবং সংগীতের আসর বসতো এই বাইতুল আমানে। কবি জসিম উদ্দীন এবং সংগীত সম্রাট আব্বাসউদ্দীন এই আসরে প্রায়ই আসতেন।
সাহিত্যের পাশাপাশি তিনি অত্যন্ত শিক্ষানুরাগীও ছিলেন। ১৯৩৮ সালে তার নিজ জেলা কুমিল্লার জামালকান্দিতে তিনি ওসমানিয়া হাইস্কুল ও মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেন। ব্যবসায়ী হিসেবে তিনি তৎকালীন বহুজাতিক কোম্পানী মেসার্স র্যালী ব্রাদার্সের অফিস ব্রোকার ছিলেন। ইংরেজিতে তুখোড় বাক-বিতণ্ডা করে বিদেশি কোম্পানীর কাছ থেকে এদেশের গরীব পাটচাষি, বেপারী, আড়ৎদার প্রভৃতি সকলের পাটের ন্যায্য মূল্য আদায়ে সহযোগিতা করতেন। ঋণ হিসেবে তাদের পাটের বীজ কেনা থেকে শুরু করে পাটের নৌকা ক্রয় পর্যন্ত বহুভাবে সহায়তা করতেন। শেরে বাংলা কর্তৃক তিনি ঋণ সালিশী বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হবার পর তার এলাকার শত শত ঋণগ্রহীতা কৃষকের বন্ধকি জমি ও সম্পত্তি রক্ষায় নেতৃত্ব দেন। কিন্তু নিজের বৈষয়িক বিষয়ে তিনি নিজে ছিলেন উদাসীন।
রাজনীতিবিদ হিসাবে তিনি ছিলেন অবিভক্ত বাংলার এমএলএ এবং রাজনীতি-সচেতন ব্যক্তিত্ব। তার নির্মিত বাসভবন বাইতুল আমান ছিল পাকিস্তান আমলে বহু রাজনৈতিক আন্দোলনের কেন্দ্রস্থল। ১৯৪৪-৪৫ সালে তিনি নারায়ণগঞ্জের মুসলিম লীগের সভাপতি এবং ঢাকা জেলার সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ১৯৪৬ সালে ব্রিটিশ আমলের শেষ সাধারণ নির্বাচনের আগে শহীদ সোহরাওয়ার্দীর পুত্র কলকাতা থেকে এসে এই বাইতুল আমানে ওসমান আলীর আতিথেয়তায় থেকেছেন। তখন সরকারি দল মুসলিম লীগকে দেশের নবাব ও জমিদারদের হাত থেকে বরং জনপ্রতিষ্ঠানে পরিণত করার নেতৃত্ব দেন তারা। সরকারি দল মুসলিম লীগ বিরোধী একটি ফ্রন্ট গঠনের উদ্যোগ নেয়ার জন্য তারা আন্দোলনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিলেন। ব্রিটিশ সরকার প্রদত্ত ‘খান সাহেব’ উপাধিটি তিনি ১৯৪৪ সালে বর্জন করেন। ১৯৪৬-এর সাধারণ নির্বাচনে ওসমান আলী ঢাকার নবাব স্যার সলিমুল্লাহর পুত্র খাজা হাবীবুল্লাহর বিরুদ্ধে নির্বাচনে তার জামানত বাজেয়াপ্ত করে বিপুলভাবে বিজয়ী হয়ে এমএলএ নির্বাচিত হন।
’৫২’র ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা সেন্ট্রাল জেলে অনশনরত রাজবন্দী শেখ মুজিবুর রহমান এবং মহিউদ্দিন আহমেদকে মফস্বলের কোনো জেলে স্থানান্তরের সময়ে নারায়ণগঞ্জে স্টীমারঘাটে আনা হয়েছিল। তিনি ২১ ফেব্রুয়ারিতে অ্যাসেম্বলি বসবে বলে এমএলএদের কাছ থেকে দস্তখত আদায়সহ আন্দোলনের ডাক দিয়েছিলেন। সেদিন ’৫২’র ১৬ ফেব্রুয়ারি ওসমান আলীর নির্দেশে নারায়ণগঞ্জে শেখ মুজিবুর রহমান এবং বাংলা ভাষার স্বপক্ষে স্টীমারঘাটেই বিভিন্ন স্লোগানে প্রকম্পিত হয়েছিল। তারপরে ২৮ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জের মর্গ্যান বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষয়িত্রী মমতাজ বেগমকে গ্রেফতার করায় নারায়ণগঞ্জে তীব্র আন্দোলন শুরু হয়। একপর্যায় নারায়ণগঞ্জে পাকিস্তান পাঞ্জাব রেজিমেন্ট ওসমান আলীর বাসভবনটি ১৪ ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। বেদম প্রহার ও পুলিশের নির্বিচার লাঠিচার্জে ওসমান আলীর ৭৮ বছরের বৃদ্ধা মাতা বেগম আলতাকুন্নেসার হাত ভেঙে যায়। ওসমান আলী, তদীয় পুত্র শামসুজ্জোহা, মুস্তাফা সারওয়ারসহ এই পরিবারের অন্য সদস্য এবং অন্যদের গ্রেফতার করা হয়। ’৫২’র ভাষা আন্দোলন থেকে আইয়ুব খানের শাসনের পূর্বপর্যন্ত নারায়ণগঞ্জের প্রায় প্রতিটি আন্দোলন ওসমান আলীর বাসভবন বাইতুল আমান থেকে পরিচালিত হয়েছিল, যার প্রথমসারিতে ছিলেন ওসমান আলী।
এই বাইতুল আমান যেহেতু রাজনৈতিকভাবে আলোচিত এবং বহু আন্দোলনের কেন্দ্র ছিল, তাই রাজনৈতিক জিঘাংসায় বিগত বিএনপি আমলে (২০০১ সালে) সরকার কর্তৃক হিংসার বশবর্তী হয়ে বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলা হয়েছিল। বর্তমান সরকারের সময়ে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আন্তর্জাতিকমানের ক্রিকেট স্টেডিয়ামটি তার নামেই নামকরণ হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের ঠিক প্রাক্কালে ১৯ মার্চ ১৯৭১ এই মহান ব্যক্তিত্বের মৃত্যু হয়।

সংবাদটি আপনার ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ

আমাদের দৈনিক পত্রিকা পড়ুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত নিউজ নারায়ণগঞ্জ বিডি ডট নেট
Customized By NewsSmart